1. admin@hvoice24.com : admin :
শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ০৯:২৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বানিয়াচং ও আজমিরীগঞ্জে উপজেলা নির্বাচন, ভোটার উপস্থিতি নিয়ে শঙ্কা হবিগঞ্জ যাত্রী কল্যাণ পরিষদের বিবৃতির পর প্রশাসনের অভিযানে জরিমানা হবিগঞ্জ যাত্রী কল্যাণ পরিষদের কমিটি গঠন, সভাপতি-জুয়েল,সম্পাদক-তৌহিদুল ইসলাম গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলনে নির্যাতিত সম্মাননা পেলেন রুবেল চৌধুরী নরওয়েতে মৃত অবস্থায় পাওয়া গেছে পবিত্র কোরআন পোড়ানো ব্যক্তিকে সহযোগীতার হাত বাড়ালেন ওসি কামাল হারানো সন্তান-কে হজে গিয়ে ফিরে পেলেন মা বিএনপি নেতা কারাবন্দি, সন্তানের ভালোবাসা সীতাকুণ্ডে সন্ত্রাসী হান্নান কে অস্ত্র সহ গ্রেফতার ডাঃ মহিউদ্দিন হাইস্কুল এন্ড কলেজে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী পালিত

এতেকাফ আল্লাহর এক অনন্য অফুরন্ত দান

সম্পাদকীয়
  • প্রকাশিত : বুধবার, ১২ এপ্রিল, ২০২৩
  • ১৪৮ বার পঠিত

এতেকাফ এর মাধ্যমে মুমিন বান্দা মহান আল্লাহর অধিক নৈকট্য লাভ করতে পারে এবং তার মেহেরবান মালিকের কাছে নিজের পূর্ণ গোলামী, বিনয়- নম্রতা ও অসহায়ত্বকে পেশ করতে পারে। তার রহমতের দুয়ারে রহমতের ভিখারি হয়ে বিরামহীন কড়া নাড়তে পারে। তাই এতেকাফ ছিল প্রিয় নবীর (সা.) প্রিয় আমল।

তিনি নিজে রমজানের শেষ দশকে এতেকাফ করতেন এবং সাহাবায়ে কেরামকে উৎসাহিত ও অনুপ্রাণিত করতেন। মদীনায় হিজরতের পর থেকে মৃত্যু পর্যন্ত প্রতি বছরই নবিজি (সা.) এতেকাফ করেছেন। অবশ্য জিহাদের সফরে থাকায় এক বছর এতেকাফ করতে পারেননি তাই পরবর্তী বছর ২০ দিন এতেকাফ করেছেন। আরেক বছর বিশেষ কারণে রমজানে এতেকাফ না করায় শাওয়ালে কাজা করেছেন। যে বছর তিনি ইন্তেকাল করেন সে বছর তিনি ২০ দিন এতেকাফ করেছেন।

১. হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত রাসুল (সা.) ইরশাদ করেন এতেকাফকারী সর্ব প্রকার গুনাহ থেকে মুক্ত থাকে এবং সে ওইসব নেকির সওয়াবও লাভ করে যা এতেকাফ করার কারণে সে করতে পারেনি। (সুনানে ইবনে মাজাহ -১৭৮১)

২. রাসুল (সা.) বলেন, যে ব্যক্তি আল্লাহর সন্তুষ্টির উদ্দেশ্যে একদিন এতেকাফ করবে আল্লাহতায়ালা তার ও জাহান্নামের মাঝে তিন পরিখা দূরত্ব সৃষ্টি করে দিবেন। যার দূরত্ব আসমান জমিনের সমান। (কানযুল উম্মাল -২৪০১৯)

৩. রাসুল (সা.) ইরশাদ করেন, যে ব্যক্তি রমজানের শেষ ১০ দিন এতেকাফ করবে, তার জন্য দুটি হজ ও দুটি ওমরার সাওয়াব রয়েছে। (বায়হাকী- ৫৮৬)

৪. রাসুল (সা.) ইরশাদ করেন, যে ব্যক্তি সাওয়াবের প্রত্যাশায় এবং ইবাদত মনে করে এতেকাফ করবে তার সকল গুনাহ ক্ষমা করে দেওয়া হবে। (মুসনাদে দাইলামি)

৫. হজরত আয়েশা (রা.) থেকে বর্ণিত যে, নবী সা মৃত্যুর আগ পর্যন্ত রমজান মাসে শেষ দশকে এতেকাফ করতেন। তার ওফাতের পর তার স্ত্রীরা এতেকাফ করেছেন। (সহিহ বুখারি -২০২৬)

এসব হাদিসগুলো থেকে এতেকাফের গুরুত্ব ও তাৎপর্য প্রমাণিত হয়। এ বিষয়টিও প্রতিয়মান হয় যে, রাসুল (সা.) একজন সফল, আদর্শ রাষ্ট্রনায়ক হওয়ায় হাজারো কাজে সদা ব্যস্ত থাকা সত্বেও নিয়মতি এতেকাফ করেছেন।

তাই আমাদের উচিত এই এতেকাফের প্রতি গুরুত্বারোপ করা। নানা ব্যাস্ততার ভেতরেও যথাসাধ্য এতেকাফের চেষ্টা করা। আল্লাহ সবাইকে তাওফিক দান করুন। আমিন

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা