1. admin@hvoice24.com : admin :
শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৬:১১ অপরাহ্ন

তীব্র তাপদেহে পুড়ছে দেশ ও বিদ্যুৎ শেডিং জন জীবন বিপর্যয়

যশোর প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত : সোমবার, ৫ জুন, ২০২৩
  • ৪০ বার পঠিত

সারাদেশের ন্যায় যশোর মনিরামপুরে তীরব্র তাপদাহে এবং বিদ্যুৎ এর ঘনঘন লোড শেডিং এর কারণে জনজীবন বিপর্যয় হয়ে পড়েছে। ফলে খেটে খাওয়া মানুষ সহ কেউই সচার আচার ঠিকমত কাজ করতে পারছেনা।

এছাড়া ও উপজেলার কিছু কিছু এলাকায় খাবার পানি ও সংকট দেখা দিয়েছে। কয়এক মাস থেকে বৃষ্টি না হওয়ায় ভূ-উপরিস্থ বিভিন্ন জলাশয়ের পানি শুকিয়ে গেছে। একই সঙ্গে ভূগর্ভস্থ পানির স্তর নেমে গেছে। বৃষ্টিহীন এই তীব্র খরায় উপজেলায় জনজীবন বিপর্যয় হয়ে পড়েছে। তীব্র খরায় পুড়ছে লাল সবুজের গাছ গাছালী এবং সেই সাথে বেড়েছে প্রচন্ড গরম।

প্রচন্ড গরমে মানুষের মধ্যে বিরাজ করছে অস্থিরতা। টানা তাপদাহে জনজীবন দুরর্ভিক্ষ হয়ে উঠেছে। এর প্রভাব পড়েছে স্বাভাবিক কাজকর্মেও। বিভিন্ন পেশায় অফিস বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে কোথাও স্বস্থি নেই। বিশেষ করে শ্রমজীবী মানুষ সবচেয়ে বেশি দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। বিশেষ করে মোটরসাইকেল আলাদের রোজগারের আশায় প্রচন্ড গরম আবহাওয়া উপেক্ষা করেই তাদেরকে হাড় ভাঙা পরিশ্রম করে যেতে হচ্ছে।

তবে আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানাগেছে, এ অঞ্চলের ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে তাপপ্রবাহ। যা বৃষ্টি না হলে এরকম তাপমাত্রা অব্যাহত থাকবে বলে মনে করেন । এরই মধ্যে উপজেলায় বিভিন্ন গ্রামে পুকুর খাল বিল
গুলো শুকিয়ে গেছে। বিভিন্ন এলাকায় মটর স্থাপন করে কুয়া বা ঘের থেকে পানি মৎস ঘের গুলোতে দিচ্ছে ফলে পানি শুকিয়ে গেছে বলে জানা গেছে। ফলে খাবার পানি সংকটে পড়েছে কয়েকটি এলাকার জনসাধারন। অপরদিক ভূগর্ভস্থ পানি দিয়ে ঠিকমত সেচ কাজ পরিচালনা করে যাচ্ছে ঘের মালিক গন। ফলে অনেক এলাকায় সেচ সংকটে আউশ ধান, পাট,তিল গাছ,সহ বিভিন্ন রকমের সবজি উৎপাদন পানির কারণে ব্যহত হতে পারে বলে অনেকে কৃষকরা ধারনা করছেন। স্থানীয় ফসল ও সবজি চাষিদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, খরার কারণে এলাকা ভেদে অতিরিক্ত সেচ দিতে হচ্ছে।সেচ দেওয়ার ২/৩দিন পরে দেখা যাচ্ছে মাটি ফেটে গেছে তাছাড়া ঘন ঘন লোড শেডিং এর কারনে সেচ কাজে চরম ব্যাহত হচ্ছে। লোড শেডিং অত্র এলাকাতে এখন নৈমিত্তিক ঘটনা হয়ে দাড়িয়েছে। কিন্তু বর্তমানে গরম যত বাড়ছে ছোট-বড় সবার অবস্থা ততই খারাপের দিকে গড়াচ্ছে উষ্ণতার আধিক্যে বিদ্যুতের সমস্যাটি ততই তীব্রতার হয়ে উঠেছে মনিরামপুর উপজেলাতে। বিদ্যুৎ সার্বক্ষণিক প্রয়োজনীয় একটি জিনিস বিদ্যুৎ দিয়ে রাতে শুধু ইলেকট্রিক বাতি জ্বলবে, ফ্যান চলবে বিদ্যুতের এটাই একমাত্র প্রয়োজনীয়তা নয়। দিনে ও রাতে যে কোন সময় হোক বিদ্যুতের অনুপস্থিতি আধুনিক জীবনের হাজার অসংখ্য সমস্যার সৃষ্টি করে। রাষ্ট্রীয়, সংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক, সামাজিক সকল ক্ষেত্রে প্রতিটি মুহূর্তে বিদ্যুতের প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। আমাদের প্রতিমুহূর্তের কার্যক্রম ব্যবসা-বাণিজ্যসহ সকল ক্ষেত্রে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়ার পথে অর্থাৎ উন্নয়নের পথেও বিদ্যুৎ ছাড়া এক বা অগ্রসর হওয়া সম্ভব নয়। আধুনিক জীবনের জন্য সর্বাধিক প্রয়োজনীয়তা রয়েছে এই বিদ্যুতের। আর এই বিদ্যুতের লোড শেডিং এর সমস্যাটা এখন জনজীবনের সৃষ্টি করছে নানা ধরনের সমস্যা দুর্ভোগ মনিরামপুর উপজেলাতে চলছে ২৪ ঘন্টা লোডশেডিং কিছুক্ষণ পরপরই বিদ্যুৎ যায় আর আসে বিদ্যুৎ এর লোডশেডিং নিয়ে দূর্ভোগের কোন শেষ নাই মনিরামপুরে জন সাধারনের, দুর্ভোগ ছাত্র-ছাত্রীদের পড়ালেখার ব্যাঘাত,পানি সরবরাহের ক্ষেত্রে বাধা, ফ্রিজ,ফ্যান,এসি চলছে না,হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যাঘাত ঘটছে এবং তীব্র তাপদহে এলাকার জন সাধারণ মানুষের জীবন আজ বিপর্যয় হয়ে পড়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা