1. admin@hvoice24.com : admin :
মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৫:০৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :

নবীগঞ্জে গৃহবধূ রক্তাক্ত,আশঙ্কাজনক অবস্থায়  সিলেটে প্রেরণ

বিশেষ প্রতিনিধি
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ৩০ জুন, ২০২৩
  • ২০৪ বার পঠিত

নবীগঞ্জের সৌলারপাড়ে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক বিধবা মহিলা পিয়ারা বেগম কে ঘরের বিতর ঢোকে বেধড়ক মারপিট করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে যায়,পাশের বাড়ীর শাহিন মিয়া শামীম মিয়া গং।

পরে (সেবা ৯৯৯-এ) কল করার পর আহত পেয়ারা বেগম কে উদ্ধার করেছেস্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়েছেন পুলিশ।  ৩০ জুন শুক্রবার সাকাল ১০টার দিকে উপজেলার দীঘলবাক ইউনিয়নের সৌলারপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী হতে জানা যায়,নবীগঞ্জ উপজেলার ৪নং দীঘলবাক ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড সৌলারপাড় গ্রামের মৃত জব্বার মিয়ার ছেলে শাহীন মিয়ার পাশের বাড়ীর এক অসহায় (বিধবা মহিলা) পেয়ারা বেগম এর সাথে বিভিন্ন বিষয়ে ভেবেনাফ থাকায় হঠাৎ শুক্রবার সকালে পেয়ারা বেগমের উঠানের পানি কেন, শাহিনের উঠানে আসে একারনে অসহায় নিআশ্রয় বিধবা মহিলাকে তার বসত করে ঢুকে, দেশীয় অস্ত্র দিয়ে বেধড়ক মারপিট ও শারীরিক নির্যাতন করে রক্তাক্ত অবস্থায় ফেলে চলে যায় নগরকান্দি (সৌলারপাড়) গ্রামের, মৃত জব্বার মিয়র দুই ছেলে শাহীন মিয়া, শামীম মিয়া,ও শাহীনের খালাতো ভাই বাণীপাতা গ্রামের তরাজ উদ্দিন এর ছেলে রাহীম মিয়া গংরা।

পরে অন্যের সহযোগিতায় জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল করলে সাথে-সাথে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে গুরুতর আহত গুরুতর আহত অবস্থায় পেয়ারা বেগমকে উদ্ধার করে পুলিশ।

এ বিষয়ে ওই বিধবা মহিলা বলেন, ‘গতকাল সকালে কোন কথাবার্তা ছাড়াই হঠাৎ করে পানি কেন শাহিনের উঠানে আসে এনিয়ে কথা কাটাকাটি হয়, পরে শাহিন মিয়া ও শামীম মিয়া উত্তেজিত হলে, আমি আমার ঘরের দরজা বন্ধ করে আত্মরক্ষার চেষ্টা করি, তারপরও বাঁচতে পারি নাই। বেপরোয়া শাহীন, শামীম, রাহীম, আমার দরজা ভেঙ্গে আমার ঘরে ঢুকে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সারা শরীরে লীলা গুলা জকম করে, শরীরের কোন জায়গায় বাকি নাই আঘাতের চিহ্নে, চিরতরে মেরে ফেলার জন্য,আমার মাথার সামনদিয়ে রুল দিয়ে যে বাড়ি মেরেছিল, মাথা ফেটে গেছে রক্তের বন্যা বইছে, এর পর বুদ্ধি জ্ঞান কিছুই ছিল না অজ্ঞান ছিলাম,পরে ইনাতগঞ্জ ফাঁড়ী পুলিশ এস আই আবু বক্কর সাহেব এসে আমাকে উদ্ধার করে নবীগঞ্জ স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠিয়েছিলেন, এখানের চিকিৎসকরা বলছেন মাথায় গুরুতর জখম, উন্নত চিকিৎসার জন্য সিলেটে রেফার করেছেন।

এ ব্যাপারে ইনাতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ীর (এসআই) আবু বক্কর বলেন, ঘটনাস্থলে গিয়ে মৌখিক অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। গৃহবধূকে উদ্ধার করে চিকিৎসায় পাঠিয়েছি। মাথায় গুরুত্ব যখন রয়েছে, থানায় অভিযোগ হলে আমরা অবশ্যই অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিব।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা