1. admin@hvoice24.com : admin :
রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৮:০০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
মডেল প্রেসক্লাবে ‘দৈনিক যুগান্তর পএিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরে পাহাড় কাটার দায়ে মামলা ও জরিমানা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’র বার্ষিক সাধারণ পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত রাস্তা ছাড়াই নদীর মাঝে দাঁড়িয়ে আছে কালভার্ট,বৃষ্টি হলেই দূর্ঘটনা সীতাকুণ্ডে স্বপ্নীল যুব কল্যাণ সোসাইটি যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন বিথঙ্গলে একতা যুব সংগঠনের ৩য় বার্ষিক সুন্নী মহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত নবম বর্ষ পেরিয়ে দশম বর্ষে পদার্পণ দৈনিক হবিগঞ্জের জননী ডাঃ মহিউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে শহিদ বেদিতে শ্রদ্ধার ফুল শহিদদের রুহের মাগফিরাত কামনায় হবিগঞ্জে জেলা পুলিশের উদ্যোগে দোয়া” বানিয়াচং মডেল প্রেসক্লাবের শ্রদ্ধাঞ্জলি

বৃন্দাবন কলেজে গার্ডের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ, ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

স্টাফ রিপোর্টার
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ১৪ জুলাই, ২০২৩
  • ১৫৬ বার পঠিত

হবিগঞ্জ বৃন্দাবন সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী নির্যাতনের ঘটনায় রোমান মিয়া (৩০) নামের এক নিরাপত্তা প্রহরীকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। ওই নিরাপত্তা প্রহরীর বিরুদ্ধে কলেজের এক ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগের বিষয়টি অনুসন্ধানের জন্য ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক রকিবুন্নাহারকে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটি আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করলে চূড়ান্ত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন কলেজের অধ্যক্ষ।

এদিকে বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষার্থীসহ সচেতন মহলে ক্ষোভ বিরাজ করে। তবে এ নিয়ে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য পাওয়া গেছে।

জানা যায়, গত ১০ জুলাই কলেজের নবনির্মিত পাঁচ তলা পরীক্ষা হলের ৩য় তলায় ওই নারী শিক্ষার্থী তার আরেক সহপাঠী ছাত্রকে নিয়ে একটি কক্ষে অবস্থান করছিলেন। এ সময় সেখানে অনার্স চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা চলছিল। ভবনটিতে জন চলাচল সীমিত থাকার সুযোগ নিয়ে ওই ছাত্রকে নারী শিক্ষার্থীর নিকট থেকে আলাদা করে ফেলেন কর্তব্যরত নিরাপত্তা প্রহরী রোমান মিয়া। নারী শিক্ষার্থীকে একটি কক্ষে ১ ঘন্টা যাবত আটকে রাখা হয়। সেখান থেকে বের হয়ে আসার পর ওই নারী শিক্ষার্থী তার ছাত্র সহপাঠীকে জানান তাকে ধর্ষণ করেছেন রোমান মিয়া।

পরদিন ১১ জুলাই বিষয়টিকে ওই ছাত্র কলেজেরই অনার্স তৃতীয় বর্ষে অধ্যয়নরত শাওন নামের আরেক শিক্ষার্থীকে অবগত করেন। ওই দুই শিক্ষার্থীর ভিন্ন ভিন্ন নাম ঠিকানা পাওয়া গেলেও তা সংবাদে প্রকাশ করা হয়নি।

১২ জুলাই শাওন এ বিষয়ে তার সহপাঠি এবং পরিচিতজনদের সাথে আলোচনা করেন। সম্মিলিত সিদ্ধান্ত মোতাবেক পরবর্তীতে কলেজের বাংলা বিভাগের একজন শিক্ষকের সাথে এ বিষয়ে পরামর্শ নেয়া হলে তিনি ওই নির্যাতিতাকে কলেজ কর্তৃপক্ষ বরাবর অভিযোগ প্রদান করার পরামর্শ দেন এবং এ বিষয়ে সকল প্রকার সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।

নির্যাতিতা সামাজিক হেনস্তার ভয়ে এবং মানসিকভাবে অত্যন্ত বিপর্যস্ত থাকার কারণে ১২ তারিখ অভিযোগ দাখিল করা সম্ভব হয়নি। এ সময়ে তার সাথে অন্যান্য কয়েকজন শিক্ষার্থী আলাপ আলোচনা করে তার বক্তব্য রেকর্ড করেন এবং তার পরিচয় গোপন রেখেই এই ঘটনার উপর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে আশ্বস্ত করা হয়।

গতকাল ১৩ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুরে নির্যাতন ও ধর্ষণের অভিযোগ জানাজানি হওয়ায় কলেজের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী অভিযুক্ত নিরাপত্তা প্রহরীকে আটক করে উত্তম মধ্যম দিয়ে অধ্যক্ষের কার্যালয়ে নিয়ে যান।

পরবর্তীতে নারী শিক্ষার্থীর সহপাঠী ছাত্র বৃন্দাবন সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের নিকট সরাসরি এ বিষয়ে অভিযোগ করেন। এ সময় জিজ্ঞাসাবাদের প্রেক্ষিতে রোমান ওই শিক্ষার্থীদের আটকে রাখার বিষয়টি স্বীকার করেন। এর প্রেক্ষিতে তাকে নিরাপত্তা প্রহরীর পথ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়।

এ বিষয়ে কলেজের সাবেক শিক্ষার্থী মাহমুদা খা জানান, ওই নারী শিক্ষার্থীকে নির্যাতন করা হয়েছে। এর সুষ্ঠু বিচার নিশ্চিত করা প্রয়োজন।

এ ব্যাপারে বৃন্দাবন সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ জানান, ছাত্রকে নির্যাতন করার বিষয়টি রোমান স্বীকার করায় তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে এছাড়াও তার বিরুদ্ধে অন্যান্য অভিযোগে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এদিকে অভিযুক্ত রোমান জানান, ওইদিন অনার্স ৩য় বর্ষের ওই ছাত্রী ও ছাত্রকে কক্ষের ভেতর আপত্তিকর অবস্থায় পান। তখন তাদেরকে বের হয়ে যেতে বললে ওই ছাত্র ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এতে রোমান তাকে চড় থাপ্পড় দেয়। কিন্তু ছাত্রীকে নির্যাতনের অভিযোগ সঠিক নয়।

এ বিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষ জানান, শিক্ষার্থীরা রোমানকে আটক করে রাখে। পরে তাদের অভিযোগ ও রোমানের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা