1. admin@hvoice24.com : admin :
রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:১৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
নবীগঞ্জে বর্জ্যের চাপে মরছে বরাক, নদী বাঁচাতে রিভার উইংসের উদ্যোগে পদযাত্রা মডেল প্রেসক্লাবে ‘দৈনিক যুগান্তর পএিকার প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন সীতাকুণ্ডের জঙ্গল সলিমপুরে পাহাড় কাটার দায়ে মামলা ও জরিমানা স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘বানিয়াচং ইসলামি নাগরিক ফোরাম’র বার্ষিক সাধারণ পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত রাস্তা ছাড়াই নদীর মাঝে দাঁড়িয়ে আছে কালভার্ট,বৃষ্টি হলেই দূর্ঘটনা সীতাকুণ্ডে স্বপ্নীল যুব কল্যাণ সোসাইটি যথাযোগ্য মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন বিথঙ্গলে একতা যুব সংগঠনের ৩য় বার্ষিক সুন্নী মহাসম্মেলন অনুষ্ঠিত নবম বর্ষ পেরিয়ে দশম বর্ষে পদার্পণ দৈনিক হবিগঞ্জের জননী ডাঃ মহিউদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ে শহিদ বেদিতে শ্রদ্ধার ফুল শহিদদের রুহের মাগফিরাত কামনায় হবিগঞ্জে জেলা পুলিশের উদ্যোগে দোয়া”

সেতুর গোড়ায় ভাঙন, দুর্ঘটনার শঙ্কা-হবিগঞ্জ ভয়েস২৪

ডেস্ক
  • প্রকাশিত : সোমবার, ১৯ জুন, ২০২৩
  • ১৪৮ বার পঠিত

আজমিরীগঞ্জ সদর ইউনিয়নের বিরাট গুচ্ছগ্রাম এলাকায় আজমিরীগঞ্জ-বানিয়াচং সড়কের (শরীফ উদ্দিন সড়ক) একটি সেতুর গোড়ায় রাস্তা ভেঙে বড় ধরনের গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে যেকোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

স্থানীয়রা জানান, আজমিরীগঞ্জ-বানিয়াচং হয়ে জলসুখা শরীফ উদ্দিন সড়কটি দিয়ে প্রতিদিন যাত্রীবাহী মোটরসাইকেল, বাস, সিএনজি, ইজিবাইকসহ মালবাহী বিভিন্ন ধরনের ট্রাক, পিকআপসহ শত শত গাড়ি চলাচল করে। গত তিন বছরে কয়েকবার ওই সেতুর উভয়পাশের সড়ক ভেঙে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে কয়েকটি দুর্ঘটনা ঘটে। নামমাত্র কয়েকবার মেরামত করা হলেও গত তিনদিনের বৃষ্টিপাতে আবারও সেতুর গোড়ায় বড় গর্ত তৈরি হয়।

রোববার (১৮ জুলাই) ওই এলাকার শওকত আলীসহ বেশ কয়েকজন এলাকাবাসী জানান, প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে এ রকম গর্তের সৃষ্টি হয়। মেরামত করা হলেও কিছুদিন পরপরই এ রকম কেন হয়, তারা তা বলতে পারেন না। তবে ভালোভাবে মেরামত করা হলে এমনটা হতো না বলে জানান স্থানীয়রা।

জলসুখা গ্রামের ফরহাদ চৌধুরী বলেন- প্রতিদিনই এই সড়ক দিয়ে আমরা উপজেলা সদরে যাতায়াত করি। কিন্তু এই ব্রিজ পার হওয়ার সময় গর্তের কারণে দুর্ঘটনার আতঙ্কে থাকতে হয়।

ওই রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী সিএনজি অটোরিকশা চালক আবু নাইম বলেন, প্রতিদিন যাত্রী নিয়ে এই রাস্তা দিয়ে জেলা শহরে আসা যাওয়া করি। সংযোগ সড়ক ভাঙনের ফলে ভয়ে চলাচল করি। বিশেষ করে রাতের বেলায় দুর্ঘটনার শঙ্কায় বেশি থাকি।

জেলা সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী কাজী নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত নই। খোঁজ নিয়া এটি দ্রুত সংস্কার করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা